বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর ২০২১) সন্ধ্যায় রাজধানীর বেইলী রোডে বাংলাদেশ গার্লস গাইড এসোসিয়েশনের হল রুমে ‘লায়লা হিজড়া স্মৃতি পদক-২০২১’ ময়ূরী হিজড়ার হাতে তুলে দেন সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হিজড়াদের সম্পত্তির অধিকার নিশ্চত করেছেন, লিঙ্গ পরিচয়ও দিয়েছেন, এখন হিজড়া সন্তানরা যেনো পরিবারের সঙ্গেই থাকতে পারে সেইটা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। পরিবারিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা গেলে তাদের জীবনমান উন্নয়ন দ্রুত হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, এ জন্য সকলের সম্মেলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন।

ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর আত্ম-স্বীকৃতি, অধিকার রক্ষা এবং জীবনমান উন্নয়নে গুরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য আরিফা ইয়াসমিন ময়ূরী (ময়ূরী হিজড়া)কে ‘লায়লা হিজড়া স্মৃতি পদক-২০২১’ প্রদান করা হয়। ময়ূরী একজন সফল উদ্যোক্তা ও উন্নয়নকর্মী। জামালপুরে সিঁড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থা নামে তার সংগঠনের মাধ্যমে ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া জনগোষ্টীর অধিকার রক্ষা ও জীনবমান উন্নয়নে কাজ করেন তিনি। সেই সঙ্গে এই জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের জন্য হস্ত ও বস্ত্র কুঠির শিল্প গড়ে তুলেছেন ময়ূরী, যেখানে বর্তমানে তিন শতাধিক ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া কর্মী কাজ করছে।

বাংলাদেশের ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর স্বীকৃতি ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে, বিশেষ করে এইচআইভি/এইডস্ প্রতিরোধে ৯০’র দশক থেকে আমৃত্যু সংগ্রাম করে গেছেন লায়লা হিজড়া। ২০০৮ সালে মারা যান তিনি। ট্রান্সজেন্ডার ডে অব রিমেমব্রেন্স উপলক্ষে ‘লায়লা হিজড়া স্মৃতিপদক ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি (বন্ধু)। দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে এ দেশের ট্রান্সজেন্ডার এবং হিজড়া জনগোষ্ঠীর অধিকার রক্ষা, জীবনমানের উন্নয়ন ও স্বাস্থ্যসেবায় কাজ করে যাচ্ছে বন্ধু। লায়লা হিজড়ার অবদানের প্রতি সম্মান জানাতে গত বছর থেকে এই স্মৃতিপদকের আবর্তন করেছে তারা।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ফরেইন সার্ভিস অফিসার অব দ্য ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট, মার্কিন দূতাবাস, বাংলাদেশ’র ড্যানিজে বাকম্যান এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টারস’র পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মোতাজ্জার হোসেন। স্মৃতিপদক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বন্ধু’র চেয়ারপারসন ও বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আনিসুল ইসলাম হিরু। এই আয়োজনে বন্ধুর সঙ্গে ছিলেন সুস্থ জীবন, পদ্মকুঁড়ি হিজড়া সংঘ এবং ট্রান্সএন্ড।

01

02

0405

06

08